FB IMG 1566236985980

দীর্ঘ দিন হয়ে গেল প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতনবৃদ্ধির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে। তবুও এখনো বিভ্রান্তি কাটেনি। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম সহ বিভিন্ন মহলে বেতনবৃদ্ধির বিভিন্ন ব্যাখ্যা চোখে পড়েছে। অথচ সংবাদমাধ্যম এর দেওয়া বিবরণ ও বাস্তবে বেতনবৃদ্ধির বিস্তর ফারাক রয়েছে।

    তার জেরেই WBPTTA আগামী 23সে সেপ্টেম্বর নবান্ন অভিযান সহ একাধিক কর্মসূচী ঘোষণা করেছে। এবং প্রশাসনিক অনুমতি, NOC, ও কোর্ট এফিডেফিট লালবাজার জমা দেওয়ার পর অনুমতি মেলে। কিন্তু আজ লালবাজার থেকেও ফোন করে জানানো হয় মুখ্যমন্ত্রীর কাছে ডেপুটেশন দেওয়ার বিষয়টি আবেদনের থেকে বাদ দিতে হবে। এর পর সংগঠনের শিক্ষকেরা গিয়ে কথা বলতেও মেলেনি অনুমতি। আসলে প্রথমে অনুমতি দিলেও কোনো এক অজানা কারণে তা তুলে নেওয়া হলো।
কিন্তু তাতেও পিছপা হতে রাজি নয় শিক্ষকেরা। তাই লাঠি, জলকামান যাই সামনে আসুক, আগামী23 তারিখে তীব্র আন্দোলনের ডাক দিয়েছেন শিক্ষকেরা।
   পিন্টু বাবুর বক্তব্য,
গত 4 তারিখে শিক্ষামন্ত্রী নিজেই বলেছেন সিনিয়র শিক্ষকদের পে ফিক্সেশন, পে প্রটেকশন দেবে। তাহলে এত তালবাহানা কেন। কেনইবা বিজ্ঞপ্তিতে সেগুলো উল্লেখ নেই। তাহলেকি শুধুই সংবাদ মাধ্যমে দেখিয়ে সাধারণ মানুষ কে এটা বোঝানো যে প্রাথমিক শিক্ষকদের প্রত্যেককে সরকার আট,দশ হাজার টাকা বাড়িয়ে দিয়েছেন। অথচ বাড়ছে মাত্র এক থেকে দুই হাজার”

Leave a Reply

Your email address will not be published.