Kishan Credit Card Loan ( কিষান ক্রেডিট কার্ড প্রকল্প)

এক দুর্দান্ত প্রকল্প নিয়ে এলো সরকার, নিজের পায়ে দাড়ানোর সুযোগ।

বর্তমানে কর্মসংস্থান একটি বড় সমস্যা। আর চাকরীর বাজার ও খারাপ। তাই চাকরি না পেলেও সরকারী প্রকল্প গ্রহণ করে নিজের পায়ে দাড়াতে পারেন। আর সমাজে সকলেই চাকরী করবে এমনটা হতে পারেনা, কিন্তু চাকরী না পেলেও যে ভবিষ্যৎ অন্ধকার তা ও কিন্তু নয়। তাই চাকরি না পেলেও হতাশ না হয়ে সরকারী সাহায্য নিয়ে স্বাবলম্বী হতে পারেন।

একদিকে কৃষি আমাদের ভিত্তি শিল্প আমাদের ভবিষ্যৎ। অন্যদিকে একমাত্র কৃষিই পারে একটি দেশ কে সঠিকভাবে এগিয়ে নিয়ে যেতে। এই পূর্ব পরিচিত স্লোগানের অপরিহার্য গুরুত্ব আমরা বর্তমানে বেশ বুঝতে পারছি। বলা চলে ভারতবর্ষ একেবারে সভ্যতার সূচনাকাল থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত একটি কৃষি নির্ভর দেশ। ভারতে সবুজ বিপ্লবের সুচনা এই কৃষিকে অস্ত্র করেই। যেকোন কিছুর বদলে কৃষকদের প্রতি বেশ সহানুভূতিশীল প্রায় সকল সরকারই।

কেন্দ্রে 2019 দ্বিতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় আসার পর বিজেপি সরকারের পক্ষ থেকে গোটা দেশের বেকার ও বিশেষ করে কৃষকদের জন্য চালু করেছে এই সরকারী প্রকল্প। শুধু কৃষকই নয়, কৃষি ও ফার্মিং কাজের সঙ্গে যুক্ত সকলেই এই প্রকল্পের সুবিধা নিতে পারেন। কৃষক সম্মান নিধি প্রকল্পের আওতায় বছরে ছয় হাজার টাকা ভাতা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। কয়েক বছর আগেই কৃষকদের জন্য চালু করা হয়েছিল দেশব্যপি কিষাণ ক্রেডিট কার্ডের মতো অত্যাধুনিক ব্যবস্থা।

ব্যাঙ্ক লোন গ্রহণের নতুন নিয়ম, না মানলে দেওয়া হবে না কোনো লোনই

এই প্রকল্পের এর মাধ্যমে খুব সহজে Kisan Credit Card এর মাধ্যমে দেশের কৃষকরা চাষের কাজের জন্য ব্যাংক থেকে ঋণ নিতে পারেন। দেশের বেশির ভাগ চাষি সরকারি Kisan Credit Card এর সুবিধা পাচ্ছেন। তারা চাষের প্রয়োজনীয় টাকা যেমন নিয়েছেন ব্যাংক থেকে, ঠিক তেমনই ফেরতও দিয়েছেন সময় মতো।

কৃষিঋণের ক্ষেত্রে দেশের প্রান্তিক চাষিরা Kisan Credit Card – কে বিশেষ সুরক্ষিত মাধ্যম বলে ধরে নিয়েছে। যদি কোন কৃষকের কাছে কিষান ক্রেডিট কার্ড থেকে থাকে, তবে সেই কৃ্ষক সহজেই দেশের যেকোন প্রান্তে থাকা যে কোন রাস্ট্রায়ত্ব ব্যাঙ্ক থেকে কোনও গ্যারান্টার ছাড়াই 1 লক্ষ 60 হাজার টাকা পর্যন্ত সহজেই ঋণ নিতে পারবেন। পাশাপাশি কিষান ক্রেডিট কার্ড এ Loan Scheme এর ক্ষেত্রে সুদের হারও সামান্য।

কৃষক ছাড়া ব্যাবসা ও অন্য কাজের জন্য সরকারী সাহায্য পেতে এখানে ক্লিক করুন

তবে মোদী সরকার বর্তমানে দেশের কৃষকদের জন্যে সুবর্ণ সুযোগ নিয়ে এসেছে। সরকারি সিদ্ধান্ত অনুসারে চলতি বছর আগস্ট মাসে কৃষক ঋণের ক্ষেত্রে দেশের রাস্ট্রায়ত্ব ব্যাঙ্কগুলি সুদের পরিমাণ বহুল পরিমানে হ্রাস করেছে। তাদের লক্ষ্য কৃষকেরা যাতে কোন প্রকার সমস্যার সম্মুখীন না হন।

সুত্রের খবর, ইতিমধ্যেই Kisan Credit Card এর আওতায় কৃষকদের 3 লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণের ক্ষেত্রে 1.5 শতাংশ সুদ ছাড় দেওয়া হয়েছে। বর্তমান অর্থনৈতিক মন্দার বাজারে এই ছাড় কৃষকদের কাছে প্রায় অকল্পনীয় একটি সুযোগ।

দেশের প্রান্তিক কৃষকদের চড়া সুদের কারবারীদের কবল থেকে রক্ষা করতে সরকারি ভাবে কিছু বছর আগে Kisan Credit Card এর মাধ্যমে ব্যাংক মারফৎ ঋণের ব্যবস্থা চালু করা হয়। সরকার কৃষকদের পাশে দাঁড়ালেও দেশের প্রান্তিক কৃষকদের বহুলাংশ এখনও কিষাণ ক্রেডিট কার্ডের বিষয়ে জানেন না।

কিভাবে পাবেন এই কার্ড ?
কিষাণ ক্রেডিট কার্ড পাওয়ার জন্যে একজন কৃষককে https://eseva.csccloud.in/KCC/Default.aspx -এ ক্লিক করে কিষাণ ক্রেডিট কার্ড অর্থাৎ KCC পাওয়ার জন্য অনলাইনে আবেদন করতে হবে। এটি ভারত সরকারের কৃষিমন্ত্রকের সংশ্লিষ্ট ওয়েব সাইট। এই ওয়েব সাইটে আবেদনকারী কৃষককে নিজস্ব আধার কার্ডের নম্বর, নিজস্ব বাসস্থানের ঠিকানা, নিজস্ব ফোন নম্বরসহ যাবতীয় তথ্য দিতে হবে।

সাথে কৃষক যদি কিষাণ সম্মান নিধি প্রকল্পের আওতায় পূর্ব হতেই যুক্ত থাকেন, তবে সেই তথ্য দিতে হবে। এভাবে পদ্ধতিগতভাবে সংশ্লিষ্ট কৃষক তার কিষাণ ক্রেডিট কার্ডের পেজ খুলে নিতে পারবে। সেই কৃষক তার অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা জমা করলেই কিষাণ ক্রেডিট কার্ড তৈরি হয়ে যাবে। এবিষয়ে আপনাদের কোন প্রশ্ন বা বক্তব্য থেকে থাকলে নীচে কমেন্ট বক্সে জানাতে পারেন।
Written by Rajeswari Sur.

আরও দুটি ব্যাংক দেউলিয়া ঘোষণা, টাকা তোলায় নিষেধাজ্ঞা, আপনার টাকা নেই তো এই ব্যাংকে?

Leave a Reply

Your email address will not be published.