Mobile Game Earning App

Mobile Game Earning App – প্রাপ্তবয়স্ক সকলেই এর কাজের মাধ্যমে রোজগার করতে পারেন টাকা

আপনি কি একজন শিক্ষার্থী বা চাকরি থেকে অবসরপ্রাপ্ত অথবা হাতে অনেক সময় আছে? তাহলে স্বল্প সময়ে আয়ের জন্য এই পন্থাটি (Mobile Game Earning App) বেছে নিতে পারেন। আজকের যুগে প্রযুক্তির উন্নতির ফলে অনলাইনের মাধ্যমে নানাভাবে টাকা রোজগার করা যায়। তার জন্য সব সময় দরকার পড়েনা কোন কোম্পানির সঙ্গে যুক্ত হওয়ার। ভাবছেন কীভাবে সম্ভব? আসুন জেনে নেওয়া যাক বিস্তারিত।

অনেকেই হয়তো জানেন অনলাইনে মোবাইলে গেম খেলে (Mobile Game Earning App) টাকা আয় করা যায়। অনেকেরই এখনো পর্যন্ত এমন কথা জানা নেই। অনেকেই এখনও ভেবে থাকেন যে শুধুমাত্র কম্পিউটারের মাধ্যমে অনলাইনে গেম খেলে টাকা আয় করা যায়। তবে প্রযুক্তিগত উন্নতি হচ্ছে ততই সৃষ্টি হচ্ছে টাকা আয় করার নতুন নতুন পন্থার। ভাই এখন বাড়ি বসে পড়ার সাথে কাজের ফাকে অবসর সময়ে গেম খেলে টাকা আয় করাটাও সম্ভব হয়ে উঠছে।

আজকে আমরা আলোচনা করব এমন একটি বিশেষ প্রতিবেদন নিয়ে যেটিকে আপনারা জীবনে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার মতো একটি পেশা হিসেবে বেছে না নিলেও অবসর সময়ে এটির সাহায্যে টাকা আয় (Mobile Game Earning App) করতে পারেন। এমন কয়েকটি মোবাইল গেম সম্পর্কে আজকে আলোচনা করবো, যেগুলি খেলে আপনারা অল্প সময়ের মধ্যে বেশ ভালো টাকা আয় করতে পারেন। তবে এর জন্য থাকতে হবে অবশ্যই একটি অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন।

তবে অবশ্যই একটি কথা মাথায় রাখা দরকার গেম খেলা (Mobile Game Earning App) একটি নেশা হয়ে দাঁড়াতে পারে। এই যতটুকু সম্ভব শুধুমাত্র অবসর সময়েই গেম খেলা যেতে পারে। এই টাকা দিয়ে আপনার পুরো সংসার খরচ বা মাসের খরচ না উঠে এলেও একটি নির্দিষ্ট টাকা উঠে আসবে। যার সাহায্যে আপনি আপনার হাত খরচ, মোবাইল রিচার্জ এবং ইলেকট্রিক বিল ইত্যাদি সহজেই প্রদান করতে পারবেন।

এ তো গেল শুধুমাত্র যারা মোবাইলে গেম খেলবেন (Mobile Game Earning App) তাদের কথা তবে যদি এই গেম খেলাটিকে গুরুত্ব সহকারে গ্রহণ করা যায় তবে ইউটিউব এবং ফেসবুক ইত্যাদি সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে নিজের চ্যানেল ইত্যাদি খুলে তা প্রচারের মাধ্যমে জনপ্রিয়তা অর্জন করে শহরে উপার্জন করা যেতেই পারে। তবে মোবাইল গেমিং এর ক্ষেত্রে শুধুমাত্র নিজে খেলে টাকা আয় করা যায় না এই গেমিং এর লিংক নিজের বন্ধু বা পরিচিতদের সাথে রেফার বা শেয়ার করে তাদেরকে ইনভাইট করার মাধ্যমে করা যায় আয়।

১) Hago- (Mobile Game Earning App)
বর্তমান যুগে এটি একটি অন্যতম জনপ্রিয় গেম যেটি খেলে আপনি টাকা ইনকাম করতে পারবেন বাড়িতে বসেই। এজন্য প্রথমেই আপনাকে গুগল প্লে স্টোরে গিয়ে অ্যাপটি ডাউনলোড করতে হবে। গুগল প্লে স্টোরে ঢুকে আপনি দেখতে পাবেন এই অ্যাপটি এখনো পর্যন্ত প্রায় ১০০ মিলিয়নেরও বেশি ব্যবহারকারী করে ফেলেছেন ডাউনলোড। এই Hago অ্যাপটির ভেতর রয়েছে একাধিক গেম। যেমন, অনলাইন গেমস, মিনি গেমস, ভিডিও চ্যাটিং, বিজ্ঞাপন দেখা ইত্যাদি। আর এগুলোর মাধ্যমেই আপনি আয় করতে পারবেন টাকা।

আপনার নোটে এই নম্বরটি থাকলেই কেল্লাফতে, হয়ে যাবেন রাতারাতি লাখপতি

২) Bulb Smash- (Mobile Game Earning App)
যদি আপনাকে অনেক টাকা ইনকাম করতে হয় তাহলে একদিকে যেমন আপনাকে গেম খেলে জিততে হবে, তেমনি তার কোড বা লিংক রেফারেন্স হিসেবে অন্যদের কাছে শেয়ার করতে হবে। এটি করলে তবেই জমা হবে একাউন্টে এক্সট্রা পয়েন্ট, চলে আসবে টাকা। তবে প্রথমে গেমটি ডাউনলোড করার পরে মোবাইলে ইন্সটল করার পর নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট জিমেইল অ্যাকাউন্ট দিয়ে লগইন করতে হবে।

খেলার শুরুতে আপনি দেখতে পাবেন আপনাকে কতগুলি মজার গেম (Mobile Game Earning App) অফার করা হচ্ছে। এই গেমগুলি খেলেই আপনি আয় করতে পারবেন টাকা। এমন একটি জনপ্রিয় গেম গুলো লাইট ভাঙার গেম। এই লাইট ভাঙার পরই আপনি পেয়ে যাবেন টাকা।

৩) Big Time Cash- (Mobile Game Earning App)
এটি একটি অন্যতম জনপ্রিয় গেমিং অ্যাপ। এই গেমটির মূলে আছে টিকিট। গেমটি খেললে আপনি অর্জন করতে পারবেন একাধিক টিকিট। পরবর্তীকালে এই টিকিটগুলো লাকি ড্র তে পাঠানো হবে। সেখানে যদি আপনার টিকিট জিতে যায় তাহলে আপনাকে দেওয়া হবে টাকা।

গেম খেলার পাশাপাশি আপনি এই অ্যাপটির মাধ্যমে আর যেভাবে আয় করতে পারবেন সেটি হল বিজ্ঞাপন দেখা। হ্যাঁ ঠিকই শুনেছেন, শুধুমাত্র বিজ্ঞাপন দেখেই যে কেউ করতে পারবেন টাকা আয়। তবে এই বিজ্ঞাপন গুলো বিভিন্ন ধরনের ভিডিও ভিত্তিক বিজ্ঞাপন হয়ে থাকে।

আগামী মাস থেকে আবার বাড়ছে সমস্ত মোবাইল ও টিভি রিচার্জের খরচ, গ্রাহকদের মাথায় হাত, কত বাড়ছে দেখুন

৪) MPL- (Mobile Game Earning App)
এ যুগের মানুষ অথচ MPL মোবাইল গেমিং অ্যাপ এর কথা শোনেননি, এমন মানুষ খুব কমই আছেন। বিশেষ করে যারা যুব সম্প্রদায় তারা তো অবশ্যই। তবে এই গেমিং অ্যাপের মাধ্যমে গেম খেলার জন্য অবশ্যই আগে এটির অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকে ফোনে ইন্সটল করতে হবে।

গুগল প্লে স্টোরে গেলে দেখতে পাওয়া যাবে লক্ষ লক্ষ মানুষ আগে থেকেই গেমটি ডাউনলোড করেছেন এবং খেলা শুরু করে দিয়েছেন। এই অ্যাপটি ডাউনলোড করলে দেখা যাবে অ্যাপটির ভেতর ২৫ টির বেশি গেম রয়েছে। (Mobile Game Earning App)

উপরে আলোচিত এই চারটি গেমিং অ্যাপ ছাড়াও বাজারে রয়েছে একাধিক মোবাইল গেমিং অ্যাপ আপনারা চাইলে এ বিষয়ে আরো তথ্য ইন্টারনেটের মাধ্যমে জেনে নিতে পারেন। এখানে যে চারটি কথা আলোচনা করা হয়েছে এগুলি অধিক জনপ্রিয় এখনকার বাজারে। এমনই আরো নিত্যনতুন খবরের আপডেট পেতে ফলো করতে ভুলবেন না এই ওয়েব পোর্টালটি।
Written by Manisha Basak.

তবে কি মাধ্যমিকে এ বছর সবাই পাশ! কি বলছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ?

Leave a Reply

Your email address will not be published.