Constable Recruitment – কন্সটাবেলদের একটি পরীক্ষা দিয়েই নিয়োগ। 12 হাজারেও বেশি শূন্যপদ।

রাজ্যের চাকরিপ্রার্থীদের জন্য খুশির খবর। রাজ্যে Constable Recruitment বা কনস্টেবল পদের নিয়োগে আসতে চলেছে বড়সড় পরিবর্তন। তিনটি পরীক্ষার বদলে এবার থেকে এক পরীক্ষায় নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে পুলিশ রিক্রুটমেন্ট বোর্ড। এক পরীক্ষায় নিয়োগ করার আর্জি জানিয়েছেন পুলিশ কর্তারা। প্রস্তাবে উল্লেখ করা হয়েছে, এই পদ্ধতিতে নিয়োগ হলে একাধারে যেমন দ্রুত নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ হবে তেমনই এটি সকল চাকরিপ্রার্থীদের জন্যই বিশেষ সুবিধা দেবে। নতুন এই পদ্ধতিতে কিভাবে নিয়োগ হবে পুলিশ বিভাগে?

West Bengal Police Constable Recruitment

সাধারণত রাজ্যে কনস্টেবল বা Constable Recruitment প্রক্রিয়া চলে ধাপে ধাপে। প্রথমে হয় প্রাথমিক লিখিত পরীক্ষা। দ্বিতীয় ধাপে হয় শারীরিক মাপজোক ও দক্ষতা নির্ণয়ের পরীক্ষা, আর তৃতীয় ধাপে হয় মূল লিখিত পরীক্ষাটি। তিনটি ধাপের পরীক্ষা শেষ মৌখিক পরীক্ষা, পার্সোনালিটি টেস্টের মাধ্যমে প্রার্থী সকল নিয়োগ পান উল্লিখিত শূন্যপদে।

এখন, পুলিশ কর্তাদের বক্তব্য, এতগুলো ধাপে পরীক্ষা নিয়ে শূন্যপদ পূরণের ক্ষেত্রে সময় যথেষ্ট বেশি লাগছে। যার ফলে পূর্ণ নিয়োগ সারতে প্রায় ছয় মাস সময় গড়িয়ে যাচ্ছে।পুলিশকর্তারা চাইছেন যাতে দ্রুত শূন্যপদ পূরণ হয়, তার জন্য একটিমাত্র নিয়োগ পরীক্ষার মাধ্যমেই যোগ্য প্রার্থীদের বেছে নেওয়া হোক। এতে গোটা Constable Recruitment প্রক্রিয়াতেই গতি আসবে।

সম্প্রতি 12 হাজার শূন্যপদে কনস্টেবল বা Constable Recruitment এর ছাড়পত্র মিলেছিল মন্ত্রীসভার বৈঠকে। নবান্নের বিচারাধীন প্রস্তাবে 12 হাজার পদের মধ্যে মোট 15 শতাংশ পদ সংরক্ষিত রাখা হয়েছে সিভিক ভলান্টিয়ারদের জন্য। আগে এক্ষেত্রে সংরক্ষণের পরিমাণ ছিল 10 শতাংশ। কিন্তু বর্তমানে আরও পাঁচ শতাংশ বাড়িয়ে সিভিক ভলান্টিয়ারদের মুখে হাসি ফুটিয়েছে রাজ্য সরকার।

ভারতীয় রেলে লোকো পাইলট নিয়োগ! মাসিক বেতন 19,900 টাকা। শীঘ্রই আবেদন করুন।

শুধু তাই নয় প্রাক্তন সেনাকর্মীদের পাঁচ শতাংশ সংরক্ষণ রাখা হয়েছে ও তাঁদের বয়স এবং শারীরিক দক্ষতায় ছাড় দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। পুলিশকর্তাদের প্রস্তাবে উল্লেখ করা হয়েছে, রাজ্যে পুলিশের কনস্টেবল বা Constable Recruitment এর এবার থেকে একটি লিখিত পরীক্ষা হোক। পাশাপাশি, নিয়োগ পরীক্ষার শেষে কনফার্ম তালিকার সঙ্গে একটি অতিরিক্ত রিজার্ভ তালিকা রাখার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।

BEL Recruitment - বেল রিক্রুয়েট্মেন্ট

এর আগে আট হাজার শূন্যপদে যে কনস্টেবল বা Constable Recruitment হয়েছিল তার প্রশিক্ষণের সময় দেখা যায় উত্তীর্ণ তালিকার অনেকেই প্রশিক্ষণ যোগদান করেননি। এই পরিস্থিতিতে বোর্ডের তরফে বিবেচনা করে সংশ্লিষ্ট আসন গুলি ফাঁকা রেখেই প্রশিক্ষণ শুরু হয়। তাই সাম্প্রতিক প্রস্তাবে রিজার্ভ তালিকা তৈরির কথাটি বলা হয়েছে।

উচ্চমাধ্যমিক পাশে ICDS অঙ্গনওয়াড়ি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি। নিজের এলাকা1900 টি শূন্যপদে চাকরির সুযোগ।

প্রস্তাবে এও উল্লেখ করা হয়েছে যে, কনস্টেবল বা Constable Recruitment এর প্রশিক্ষণ শুরু হয়ে গেলে এই রিজার্ভ তালিকার কোনো অস্তিত্ব থাকবে না। সূত্রের খবর, কনস্টেবল নিয়োগ পরীক্ষা সম্পর্কিত এই নতুন প্রস্তাবটি সম্প্রতি নবান্নে পাঠানো হয়েছে। মনে করা হচ্ছে শীঘ্রই বিষয়টি নিয়ে বিবেচনা সেরে বিবৃতি জারি করা হবে।
Written by Purbasha Chakraborty.

Leave a Comment