WB Scholarship

WB Scholarship: জেনে নিন আবেদনের শেষ তারিখ

মাধ্যমিক কিংবা উচ্চ মাধ্যমিকে ভালো ফল (WB Scholarship)। পড়াশোনা এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ইচ্ছে। কিন্তু সাধ থাকলেও সাধ্য নেই। চিন্তা কিসের! রাজ্যের মেধাবী পড়ুয়াদের জন্য রাজ্য সরকারের তরফ থেকে একাধিক স্কলারশিপের ব্যবস্থা করা হয়েছে। বর্তমানে সেইসব স্কলারশিপ গ্রহণ করার মাধ্যমে পড়ুয়ারা উচ্চশিক্ষা শেষ করার পর চাকরির ক্ষেত্রেও সাফল্য পেয়েছেন।

আরও দেখুনঃ পশ্চিমবঙ্গের মাধ্যমিক উচ্চমাধ্যমিক পাস পরীক্ষার্থীদের স্বপ্নপূরণের জন্য রইল ৫ টি দুর্দান্ত স্কলারশিপের হদিশ

সেরকম একটি স্কলারশিপ এর নাম হলো ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ। যেসকল মেধাবী পড়ুয়ারা মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক বা স্নাতক পাশ করে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করতে চান, তারা এই স্কলারশিপের জন্য আবেদন জানাতে পারবেন। পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু বিভাগ ও অর্থ নিগমের তরফ থেকে রাজ্যের সংখ্যালঘু ছাত্র- ছাত্রীদের এই স্কলারশিপ প্রদান করা হয়ে থাকে (WB Scholarship)। আবেদনের জন্য বিস্তারিত তথ্য নিচে দেওয়া হয়েছে।

আবেদনের যোগ্যতা-
১) এই স্কলারশিপ পাওয়ার জন্য আবেদনকারীকে অবশ্যই একজন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ( শিখ, খ্রিষ্টান, মুসলিম, বৌদ্ধ, জৈন, পারসি) অন্তর্গত ছাত্র বা ছাত্রী হতে হবে।

২) প্রি-ম্যাট্রিক ও পোষ্ট-ম্যাট্রিক স্কলারশিপ হিসেবে, যে সকল পড়ুয়া প্রথম শ্রেণি থেকে দশম শ্রেণিতে পাঠরত তারা প্রি-ম্যাট্রিক স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারবেন (WB Scholarship)। এবং যে সমস্ত ছাত্রছাত্রী উচ্চমাধ্যমিক, ITI, Diploma, Graduation, Post Graduation, M.Phil, B.Ed সে পাঠরত তারা পোস্ট ম্যাট্রিক স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারবেন ।
৩) আবেদনকারীকে শেষ পরীক্ষায় কমপক্ষে ৫০ শতাংশ নম্বর নিয়ে পাশ করতে হবে।
উল্লেখ্য, আবেদনকারীকে পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে (WB Scholarship)। এছাড়া আবেদনকারীর পরিবারের বার্ষিক আয় ২ লক্ষ টাকার কম হতে হবে।

বৃত্তির মূলাঙ্ক –
১) প্রি-ম্যাট্রিক স্কলারশিপ (প্রথম থেকে দশম শ্রেণী) বার্ষিক ১,১০০ টাকা থেকে ১১,০০০ টাকা পর্যন্ত।
২) পোস্ট- ম্যাট্রিক স্কলারশিপ (উচ্চমাধ্যমিক, ITI, Diploma, Graduation, B.Ed, Post Graduation, M. Phil)- বার্ষিক ১০,২০০ টাকা থেকে ১৬,৫০০ টাকা পর্যন্ত।

আবেদন পদ্ধতি-
কেবলমাত্র অনলাইনেই ঐক্যশ্রী স্কলারশিপের জন্য আবেদন করা যাবে (WB Scholarship)। অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে ক্লিক করে আবেদনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র ও বৈধ মোবাইল নম্বর, ইমেল আইডি দিয়ে নতুনভাবে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে।

আবেদনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র-
১) শেষ পরীক্ষার মার্কশীট
২) মাধ্যমিক পাশ করে থাকলে মাধ্যমিকের এডমিট কার্ড
৩) ভর্তির রশিদ
৪) স্থায়ী বসবাসকারী সার্টিফিকেট
৫) পারিবারিক আয়ের সার্টিফিকেট
৬) পাসপোর্ট সাইজের কালার ছবি
৭) ব্যাংকের পাস বই
৮) জাতিগত শংসাপত্র

আরও জানুনঃ আবারো কি বাড়বে গরমের ছুটি? কিসের ইঙ্গিত দিলো হাইকোর্ট?

আবেদনের শেষ তারিখ- ডিসেম্বর, ২০২২

অফিশিয়াল ওয়েবসাইট- Click Here

অফিশিয়াল বিজ্ঞপ্তিClick Here

শিক্ষাসংক্রান্ত অন্যান্য খবরের আপডেট সবার আগে পেতে হলে এই ওয়েবসাইটটি ফলো করতে ভুলবেন না।

Written by Manika Basak

Leave a Reply

Your email address will not be published.