Post Office Scheme

 Post Office Scheme : পোষ্ট অফিসের সেরা স্কীম।

Post Office Scheme – এমন একটি স্বল্প অর্থের ইনভেস্টমেন্ট যেটা ম্যাচিওর হওয়ার পর আপনি পেয়ে যাবেন লক্ষ লক্ষ টাকা।মাত্র ১৫০ টাকা বিনিয়োগের মাধ্যমে পেয়ে যাবেন ২০ লক্ষ টাকা।আপনি লাখোপতি হয়ে উঠতে পারেন খুব অল্প টাকা ইনভেস্টের মাধ্যমে।

আপনি যদি এরকম স্বল্প অর্থে লং টার্ম ইনভেস্ট (Post Office Scheme) করার অপশন খুজে থাকেন তাহলে আপনার জন্য সব থেকে লাভবান অপশন হলো পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ড ( Public Provident Fund )। আপনি যদি চাকুরীজীবী হয়ে থাকেন এবং সেভিংস এর জন্য লাভবান স্কিম চাইছেন তাহলে খুলতে পারেন পিপিএফ অ্যাকাউন্ট , এই ফান্ডের মেয়াদ হতে পারে প্রায় ১৫ বছর পর্যন্ত এবং ১৫ বছর পর ইন্টারেস্ট সহ আপনি ফেরত পেতে পারেন কয়েক লক্ষ টাকা। এই পিপিএফ অ্যাকাউন্ট এর আরো একটি আকর্ষনীয় বৈশিষ্ট হলো আপনার অ্যাকাউন্টের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পরেও আপনি চাইলে আরও পাঁচ বছরের জন্য ফান্ড বাড়াতে পারেন। আপনি যদি ৩০ থেকে ৩৫ বছর বয়সের মধ্যে একটি পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ডে অ্যাকাউন্ট খোলেন, তাহলে ১৫ বছরের বছরের মধ্যে আপনি হয়ে উঠবেন লাখোপতি। 

তবে বিভিন্ন অর্থবীদদের মতামত অনুসারে এই অ্যাকাউন্টের মেয়াদ ১৫ বছরের মধ্যে সম্পন্ন হয়ে যাওয়ার পর যদি খুব অর্থের প্রয়োজন না হয়ে থাকে তাহলে আরোও পাঁচ বছরের জন্য ফান্ড বাড়াতে পারেন তাহলে আরো বেশি অর্থপ্রাপ্তি ঘটবে।এই পিপিএফ ফান্ডে অ্যাকাউন্ট (Post Office Scheme) খুললে সবথেকে সুবিধাজনক বিষয়টি হলো ম্যাচিওর হয়ে যাবার পর যে অর্থ আপনি পাবেন সেটি সম্পূর্ণ ট্যাক্স মুক্ত। 

অল্প টাকায় ইনভেস্টমেন্ট এর মধ্যে সবথেকে লাভজনক ইনভেস্টমেন্ট ( Post Office Investment) হল পোস্ট অফিসের পিপিএফ অ্যাকাউন্ট। এই অ্যাকাউন্টে আপনি যদি ১৫০ টাকা করে প্রতিদিন জমা রাখেন তাহলে প্রায় ২০ লক্ষ টাকার বেশি ফান্ড তৈরি করতে পারবেন আপনার চাকরি জীবনের কুড়ি বছরের মধ্যে। 

বিভিন্ন অর্থবীদদের মতামত অনুযায়ী আমরা সকলেই দৈনন্দিন জীবনে এমন অনেক কিছুর পেছনেই ১০০ থেকে ১৫০ টাকা খরচ করে থাকি যেগুলো হয়তো অকারণ অথবা খুব একটা প্রয়োজনীয় নয় কিন্তু এই অপ্রয়োজনীয় জিনিসের উপর খরচ না করে সেই টাকা যদি সরকারি স্মল সেভিং স্কিমে ইনভেস্ট করা যায় তাহলে আপনি সঞ্চয় করতে পারবেন কয়েক লক্ষ টাকা। 

পিপিএফ অ্যাকাউন্টের সুবিধা গুলি কি কি?

পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ডে টাকা সঞ্চয় করলে সেই ইনভেস্টমেন্টের ( Post Office Scheme)মেয়াদ হয়ে থাকে ১৫ বছর তবে আরো একটি গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হলো আপনি ইচ্ছুক থাকলে আরো ৫ বছর এই মেয়াদ বৃদ্ধি করতে পারেন। এই ফান্ডে আপনি টাকা সেভিং করলে আপনি পেয়ে যাবেন ৭.১ শতাংশ কম্পাউন্ডিং ইন্টারেস্ট। এই অ্যাকাউন্টে বছরের সর্বোচ্চ ১.৫ লক্ষ টাকা সঞ্চয় হতে পারে। তাহলে হিসাব অনুযায়ী আপনি ৬২ লক্ষ্য টাকা সঞ্চয় করতে পারেন ২৫  বছরের।

পিপিএফ ক্যালকুলেটর

২৫ বছর বয়সী ব্যক্তিদের জন্য সবথেকে লাভবান স্কিম হল পিপিএফ ফান্ডের অ্যাকাউন্ট , স্বল্প ইনভেস্টমেন্টে (Post Office Investment)অনেক বড় রিটার্ন পেতে পারেন এই স্কিমের মাধ্যমে। আপনি যদি প্রতিমাসের আয় ৩০ থেকে ৩৫ হাজার হয়ে থাকে তাহলে যদি এই পিপিএফ অ্যাকাউন্টে প্রতিদিন ১০০ থেকে ১৫০ টাকা করে জমা রাখেন তাহলে আপনি হয়ে উঠবেন লাখোপতি। আপনি যদি ২৫ বছর বয়সে এই ফান্ড তৈরি করেন তাহলে ৪৫ বছর বয়সে আপনি সঞ্চয় করতে পারবেন কুড়ি লক্ষ টাকার বেশি অর্থ। 

∆ আপনি যদি প্রতিদিন পিপিএফ ফান্ডে ১৫০ টাকা করে সঞ্চয় করেন তাহলে প্রতিমাসে ৪৫০০ টাকা সঞ্চিত হবে।

আরও পড়ুন – এককালীন ৫০০০০ টাকা দিয়ে পান লাখ টাকা।

∆ আর যদি প্রতিমাসে ৪৫০০ টাকা আপনি ইনভেস্ট (Post Office Investment) করেন তাহলে প্রতিবছরে ৫৪০০০ টাকা সঞ্চয় হবে।

∆ তাহলে আপনার প্রায় ১০.৮ লক্ষ টাকার ইনভেস্টমেন্ট হচ্ছে ২০ বছরে। 

∆ আর এর পাশাপাশি বার্ষিক ৭.১ শতাংশ কম্পাউন্ডিং ইন্টারেস্ট যুক্ত হয় কুড়ি বছরে রিটার্ন পাবেন প্রায় ২০ লক্ষ টাকার বেশি।

আরও পড়ুন – বাজেটের পর নতুন স্কীম, এককালীন ১ লাখ দিয়ে পান ৫ লাখ

One thought on “Post Office Scheme : প্রতিদিন মাত্র ১৫০ টাকা বিনিয়োগে মেয়াদ শেষে পান ১০ লাখ টাকা, পোষ্ট অফিসের নয়া স্কীম।”

Leave a Reply

Your email address will not be published.